Review: Kachher Manush – Suchitra Bhattacharya / কাছের মানুষ – সুচিত্রা ভট্টাচার্য

তা বেশ অনেক বছর আগের ব্যাপার, বুঝলেন. Early-mid nineties. আমি তখন ছোট-ই।   সবে দেশ পড়া শুরু করেছি।  মা রেগুলার পড়তেন-টড়তেন, পড়ার অভ্যেসটাও তিনি-ই তৈরী করেছিলেন, কিন্তু একটুখানি পিউরিটানও ছিলেন। তোমার এখনো এইটা পড়ার বয়েস হয়নি – টাইপের কথা একটু-আধটু শুনেছি।  যাকগে , net-net তখন আমার দেশ পড়ার বয়েস সবে হয়েছে , আর দেশে তখন ধারাবাহিক ভাবে বেরোচ্ছে এক সাথে সুনীল গঙ্গেপাধ্যায়ের “প্রথম আলো” , আর সুচিত্রা ভট্টাচার্যের “কাছের মানুষ”।

আমি সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের “সেই সময়” টিভি সিরিয়াল দেখেছি, তার হিন্দি রূপান্তর যুগান্তরও  টিভিতে দেখেছি – কী সুন্দর সুন্দর সব সিরিয়াল তৈরী হতো তখন ! তারপর মায়ের অফিসের লাইব্রেরি থেকে এনে বইটাও পড়ে শেষ করে ফেলেছি তদ্দিনে । যখন বুঝতে পারলাম “প্রথম আলো” literally  “সেই সময় ” এর পরবর্তী ভাগ, তো খুব আগ্রহের সঙ্গে দেশের আগের সংখ্যাগুলো নামিয়ে এনে প্রথম থেকে শুরু করে দিলাম পড়তে।  দারুন, দারুন – কিন্তু হয়ে গেলো শেষ পুরোনো পর্বগুলো , এখন বসে থাকো পরের কিস্তির জন্যে।

কিন্তু সে কি আর হয়? আমি পড়ুয়া ছেলে , পুরোনো দেশ গুলো তো হাতের কাছেই ছিল, শুরু হয়ে গেলো অন্য উপন্যাসটি পড়া।  বাঁচোয়া এই, যে প্রথম আলো তখন গল্পের একেবারে মাঝপথে, কাছের মানুষ সবেই শুরু হয়েছে।  কিন্তু মজে গেলাম গল্পে – especially কারণ গল্পের পাত্র-পাত্রীরা আমাদের মতনই মিডল-ক্লাস শহুরে সাধারণ লোকজন।

“প্রথম আলো” তো আর ঠিক “সেই সময়” নয়, মাঝখানে খানিকটা ঝুলে যায়, যদিও সব মিলিয়ে খুবই উঁচু লেভেলের লেখা –  যারা পড়েছেন তারা বুঝবেন কি বলছি।  চার পাঁচটা কিস্তির মধ্যে-ই হয় কি, আমি প্রথমে “কাছের মানুষ” দিয়েই নতুন দেশ পড়তে শুরু করি.

কী সুন্দর, free-flowing লেখা ! বিপুলকায় উপন্যাস, কত ক্যারেক্টার এর আনাগোনা, তাদের নিজেদের গল্প, একটা কাঠামোয় বেঁধে রাখা খুব একটা চাট্টিখানি কথা নয়।  কিন্তু সুচিত্রা ভট্টাচার্য্য খুবই দক্ষতার সঙ্গে সেটা করেছেন – narrative flow is super smooth, character arcs are very well-defined. আর ভদ্রমহিলা এতো সুন্দর ডায়ালগ আর সিন লিখতেন ! খুবই visual লেখার style ।  পড়লে যেন মনে হয় ঠিক চোখের সামনেই সব ঘটনাগুলো হচ্ছে।

ইন্দ্রানীকে আপনি নিশ্চয়ই একজন স্ট্রং ক্যারেক্টার বলবেন – স্পষ্টবক্তা , দৃঢ়চেতা , বুদ্ধিমতী, সাহসী।  একান্নবর্তী পরিবারের তিনি-ই মাথা – স্কুলে পড়ান, আবার সংসারের যে বংশানুক্রমিক ছোট ছাপাখানার ব্যবসাটি আছেই, তারও কর্মভার সামলান। একটা কিছু অসম্পূর্ণতা যেন তাকে ঘিরে আছে।  তাঁর স্বামী আদিত্য বিভিন্ন ব্যবসায় অসফল , মদ্যপ, কুঁকড়ে থাকা এক ব্যর্থ মানুষ ( বলা যায় বেশ শীর্ষেন্দু-উপযোগী এক হেরো লোক). তাদের ছেলে বাপ্পা, মেয়ে তিতির।  বাপ্পা  কলেজ স্টুডেণ্ট,  উদ্যোগী , উচ্চাকাঙ্খী, কিছুটা হয়তো স্বার্থপর।  তিতির স্কুলে –  শান্ত, বাবা-অন্ত-প্রাণ , নরম-হৃদয়।  ঢাকুরিয়া-র কাছে তাদের বাড়ি – তাদের সঙ্গে থাকে আদিত্য-র অশীতিপর বাবা জয়মোহন, তার দুই ভাই, সুদীপ তার স্ত্রী রুনা আর ছেলে এটম-এর সাথে, আর ছোট ভাই কন্দর্প, struggling film actor। আর আছে স্বনামধন্য ডাক্তার শুভাশিস, ইন্দ্রানী-র পুরোনো বন্ধু, আর তার সংসার, স্ত্রী ছন্দা আর ছেলে টোটো।

আর আছে কলকাতা, এতো লোক, এতো কথা, এতো বন্ধন, তবুও একাকিত্ব।  একদিকে যেমন এই নিস্তরঙ্গ জীবন, তেমনি হঠাৎ কখনো কোনো বিশেষ ঘটনা যেন এই ভিত-টাকে নাড়া দিয়ে যায়।  কত চাপান উতর, শ্লেষ, গ্লানি, হতাশা, আবার হঠাৎই মন ভরা আনন্দ ।  এই নিয়েই তো মানুষ।  কেউ বা কিছু দূরের, কেউ বা কাছের।

আমি একটু আধটু লিখি , যদিও বাংলায় লেখার ঠিক সাহস হয় না। যে ভাষায় আপনি প্রতিদিন কথা বলেন না, যে ভাষা আপনাকে প্রত্যহ ঘিরে নেই, সে ভাষায় লেখা তো কিছুমাত্রায় দুঃসাহস, তাই না? যাই হোক, যখন কেউ জিজ্ঞেস করে আমার প্রিয় লেখকদের কথা, আমি সাধারণতঃ বলি যে যারই  লেখায় পড়তে ভালো লাগুক না কেন, আমি যখন লিখি, তখন খুব চেষ্টা করি আমার লেখাটা যেন Raymond Chandler বা Nick Hornby-র মতো হয়, সহজপাঠ্য কিন্তু কিছুমাত্রায় গভীরতাপূর্ণ (পারি না বেশিরভাগ সময়, বলাই বাহুল্য ) – আর একটা নামকে অনেক সময় বলি না, সেটা কিন্তু এই জন্য-ই যে আমার ভিন্নভাষী বন্ধুবান্ধব এবং সহলেখকরা সবাই তো আর সুচিত্রা ভট্টাচার্য কে চিনবেন না।  সুচিত্রা ভট্টাচার্যের মতন-ই লিখতে চাই।

কিছুদিন আগেই আবার পড়লাম কাছের মানুষ, একইরকম ভালো লাগলো।

Advertisements

About Shom

Shom Biswas is a writer from India. @Spinstripe
This entry was posted in Unpublished and tagged , , , , , , , . Bookmark the permalink.

One Response to Review: Kachher Manush – Suchitra Bhattacharya / কাছের মানুষ – সুচিত্রা ভট্টাচার্য

  1. Bodhi says:

    Tui r ami bodhoi Siamese twins chilam goto jomme. Kichudin agei suchitra bhattacharya r bhangonkal porlam, abar. Shei rokom e bhalo laglo. Tobe Tor bangla e blog lekha ta byapok lagche!! Chaliye jao bondhu!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s